Home / জানা অজানা / সর্বকালের সবচেয়ে ব্যয়বহুল হলিউড মুভি – সর্বকালের সেরা সিনেমা

সর্বকালের সবচেয়ে ব্যয়বহুল হলিউড মুভি – সর্বকালের সেরা সিনেমা

সর্বকালের সেরা সিনেমাঃ আমাদের অনেকের কাছেই হলিউড মানে টাকার ছড়াছড়ি এবং বক্স অফিসে বিপুল পরিমাণ অর্থলাভ। তবে অর্থলাভের পরিমাণ যেমন বেশি তেমন হলিউডের বিভিন্ন মুভি তৈরিতেও খরচ হয় বিপুল পরিমাণ টাকা। তবে এক্ষেত্রে সুপারহিরো দের মুভিগুলো একটু বেশিই এগিয়ে। আর যার কারন এসব মুভিতে ভিএফএক্স এর ব্যাপক ব্যবহার। তবে এই পোস্টে আমরা হলিউড মুভির খরচ বেশি হওয়ার কারন খুঁজতে আসিনি নিশ্চই? তো আর দেরি কেনো চলুন দেখে নেই সর্বকালের সবচেয়ে ব্যয়বহুল হলিউড মুভি গুলো সম্পর্কে:

৫. জন কার্টার (John Carter)

২০১২ সালে মুক্তি পাওয়া এই সাইন্স-ফিকশন/ফ্যান্টাসি মুভিটির কাহিনী নেয়া হয়েছে এডগার রাইস বারোজ এর বিখ্যাত উপন্যাস ‘A Princess of Mars’ থেকে। পরিচালক এন্ড্রু স্ট্যান্টন এর পরিচালনায় ও ‘ওয়াল্ট ডিজনী পিকচার্স’ এর প্রযোজনায় মুক্তি পায় ‘জন কার্টার’ মুভিটি। মুভিটি তৈরি করতে খরচ হয় প্রায় ২৬৩.৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ২০৬০ কোটি টাকা। তবে মুভিটি একেবারেই ব্যবসাসফল নয়। বিশ্বজুড়ে মুভিটি আয় করে মাত্র ২৮৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ২,২২৩ কোটি টাকা (লাভ? মাত্র ২০.৩ মিলিয়ন ডলার), যা এক প্রকার অনাকাঙ্ক্ষিতই বলা চলে।

আরো পড়ুনঃ ডানা ছাড়াই উড়তে পারে যেসব প্রাণী – জানা অজানা বিভিন্ন তথ্য

৪. অ্যাভেঞ্জার্স: এজ অব আলট্রন

তালিকার ৪র্থ স্থানে রয়েছে ২০১৫ সালে মুক্তি পাওয়া সুপারহিরো মুভি অ্যাভেঞ্জার্স: এজ অব আলট্রন। পরিচালক জস হুইডনের পরিচালনায় এই মুভিটিতে অভিনয় করেন ক্রিস হেমসওর্থ, রবার্ট ব্রাউনি ডী জুনিয়র, মার্ক রোফালো, স্কারলেট জোহান্সনসহ আরো অনেক তারকা অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। মুভিটির শুটিং করা হয় বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে। সুপারহিরোদের এই মুভিটির তৈরিতে খরচ পড়েছে প্রায় ২৭৯.৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ২,১৮৪ কোটি টাকা এবং মুভিটি আয় করে ১.৪০৫ বিলিয়ন ডলার।

৩. জাস্টিস লিগ (Justice League)

ব্যাটম্যান ভার্সেস সুপারম্যান: ডন অব জাস্টিস যেখানে শেষ হয়েছিল, জাস্টিস লিগের শুরুটা সেখান থেকেই, মানে সুপারম্যানের মৃত্যুর সংবাদ দিয়ে। তবে মৃত্যু হলেও লুইস লেনের স্বপ্নের মধ্যে দেখা দেয় সুপারম্যান। আর অন্যদিকে স্বপ্নের মধ্যে পৃথিবীকে ধ্বংস হতে দেখেন ব্যাটম্যান। আক্রমণ আসছে জানাতেই ওয়ান্ডার ওমেনকে জানান ভয়াবহ এক পরিণামের মুখোমুখি দাঁড়িয়ে তারা, পৃথিবীকে ধ্বংসের হাত থেকে বাঁচাতে মোকাবিলা করতে হবে আগের চেয়েও বেশি শক্তিশালী এক শত্রুকে। সুপারহিরোদের এই মুভিটির পেছনে খরচ পড়েছে প্রায় ৩০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (২৩৫০ কোটি টাকা) ও এর থেকে আয় হয়েছে প্রায় ৯৬৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

আরো পড়ুনঃ যে ৪টি লক্ষণে বুঝবেন আপনার প্রেমিকা লোভী

২. পাইরেটস অফ দ্য ক্যারিবিয়ান: অ্যাট ওয়ার্ল্ড’স এন্ড

 

এটি ‘পাইরেটস অফ দ্যা ক্যারিবিয়ান’ সিরিজের ৩য় মুভি। পরিচালক গর ভারবিন্সকি এর পরিচালনায় মুভিটিতে অভিনয় করেন বিখ্যাত অভিনেতা জনি ডেপ (পর্দায় ক্যাপ্টেন জ্যাক স্পেরো), অরল্যান্ডো ব্লুম (উইলিয়াম টার্নার), কেইরা নাইটলি (এলিজাবেথ সোয়ান), জিওফ্রে রাশ (হেক্টর বারবোসা) প্রমুখ। ২০০৭ সালে মুক্তি পাওয়া এই মুভিটি ছিল একই সাথে ওই বছরের সবচেয়ে ব্যয়বহুল ও সবচেয়ে ব্যবসাসফল মুভি। মুভিটির পেছনে খরচ পড়েছে প্রায় ৩০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার (২৩৫০ কোটি টাকা) এবং মুভিটি আয় করে প্রায় ৬৫৫.২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

১. পাইরেটস অফ দ্য ক্যারিবিয়ান: অন স্ট্রেঞ্জার টাইডস

এটি ‘পাইরেটস অফ দ্যা ক্যারিবিয়ান’ সিরিজের ৪র্থ সংযোজন। চলচ্চিত্রটির কাহিনী নেওয়া হচ্ছে টিম পাওয়ারের উপন্যাস অন স্ট্রেঞ্জার টাইডস থেকে। ২০১১ সালে মুক্তি প্রাপ্ত অ্যাডভেঞ্চার ফ্যান্টাসি ধরনের এই মুভিটির পরিচালক ছিলেন রব মার্শাল (আগের তিনটির পরিচালক গোর ভারবিনস্কির পরিবর্তে)। মুভিটিতে যথারীতি অভিনয় করেন দেখা যায় জনি ডেপ (পর্দায় ক্যাপ্টেন জ্যাক স্পেরো), অরল্যান্ডো ব্লুম (উইলিয়াম টার্নার), জিওফ্রে রাশ (হেক্টর বারবোসা) প্রমুখ , যদিও নায়িকা হিসেবে আর কেইরা নাইটলিকে (এলিজাবেথ সোয়ান) দেখা যায় না। তার পরিবর্তে অভিনয় করেন পেনেলোপ ক্রুজ। হলিউডের ইতিহাসে সবচেয়ে ব্যয়বহুল এই মুভিটির পেছনে খরচ হয় প্রায় ৩৭৮.৫ মিলয়ন মার্কিন ডলার বা ২,৯৬০ কোটি টাকা। যদিও এই শ্বাসরুদ্ধকর ফ্যান্টাসি মুভিটি আয় করে নেয় প্রায় ১.০৪৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

Check Also

স্মার্ট প্যান্টি

ধর্ষণ রুখতে স্মার্ট প্যান্টি তৈরি করল ভারতীয় ছাত্রী, খুলবে পাসওয়ার্ডে!

সাত বছরের শিশুর সঙ্গে দুষ্কর্মের ঘটনা মন ভেঙে দিয়েছিল ১৯ বছরের সিনু কুমারীর। তখন থেকে …